বুধবার, ২২ Jun ২০২২, ০৯:৩৫ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
নৌকা স্বাধীনতা ও উন্নয়নের প্রতীক : কানতারা খান – দৈনিক বাংলাদেশে সংবাদ নিয়ামতপুরে রাধা গোবিন্দ মন্দিরে মহা প্রভুর ভোগ উপলক্ষে লীলা কীর্তন অনুষ্ঠিত কাশিয়ানী সদর ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী মসিউর রহমান খানের আলোচনা ও মতবিনিময়সভা কাশিয়ানীতে ১০টি ঢালসহ আটক ২ – দৈনিক বাংলাদেশে সংবাদ পারুলিয়া ইউপি নির্বাচন : প্রার্থিতা ফিরে পেলেন স্বতন্ত্র প্রার্থী শফিকুল ইসলাম কাশিয়ানী সদর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের উদ্যোগে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত প্রবাসী ফাউন্ডেশন নারায়ণপুর ইউনিয়ন শো-ডাউন করে ফরম জমা দিলেন ইউপি চেয়ারম্যান মসিউর রহমান খান কাশিয়ানীতে প্রধানমন্ত্রীর শারদ উপহার বিতরণ অনুষ্ঠান কাশিয়ানী সদর ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডের ফর্ম জমা দিলেন আঃ ছত্তার শেখ – দৈনিক বাংলাদেশ সংবাদ
হলুদ সাংবাদিকতা কি? সাংবাদিকতায় সম্মান ও অসম্মান

হলুদ সাংবাদিকতা কি? সাংবাদিকতায় সম্মান ও অসম্মান

বাহাউদ্দীন তালুকদার :
সব পেশার সাথে আসলে সাংবাদিকতার কোনো তুলনা হয়না। সাংবাদিকতায় যেমন আছে সম্মান তেমন অসম্মান আছে। সম্মান কারা পায় যারা ভালো ভাবে কাজ করে।

হলুদ সাংবাদিকতার পরিচয়ঃ ইংরেজিতে yellow journalist বা yellow reporter বাংলায় হলো হলুদ সাংবাদিক। আসলে হলুদ সাংবাদিকতার অনেক উদাহরণ রয়েছে।

অনেকেই আছে সাংবাদিকতার কার্ড পেয়েই চাঁদাবাজী শুরু করে। যারা অপরাধ করেন, তাদের কাছে অপরাধের সংবাদ প্রকাশ করার হুমকি দিয়ে টাকা আদায় করেন। এরকম সংবাদ প্রায় পত্রিকায় প্রকাশ হয়ে থাকে । এরকম ভূয়া সাংবাদিক বিভিন্ন অফিসে টাকা চেয়ে বসে থাকে, কারো ভালো একটা সংবাদ প্রকাশ হইছে, তাদের কাছে টাকা চেয়ে বসেন। এগুলো সাংবাদিকতার পরিচয় নয়। এগুলো যারা করে তারাই হলো হলুদ সাংবাদিক। আর এরাই সাংবাদিকতার নামে অপসাংবাদিক হয়ে আছে দেশ ও সমাজের জন্য। যাদের জন্য আজকে মিডিয়া জগৎ আগের চেয়ে অনেকটাই নষ্ট হয়ে গেছে। সাংবাদিকতার জন্য আপনাকে সংবাদ সংগ্র করতে হবে। কিন্তু আপনি সাংবাকিদতার পরিচয়ে টাকার জন্য সংবাদ করবেন এটা সাংবাদিতার পরিচয় না।

আপনি সাংবাদিক, তাই আপনাকে অনেকেই সংবাদের জন্য ডাকবেন। হঠাৎ কেউ সংবাদের জন্য ডাকলো ,আর আপনি হয়তো বলবেন, ভাই কি সংবাদের জন্য ডাকছেন, আপনি যদি শুনেন যে সেই সংবাদটি একটি দূর্ঘটনার, তাহলে আপনি যদি একান্তই মনে মনে ভাবেন যে, দুর্ঘটনার সংবাদ করতে গেলে আমার টাকা ও সময় দুটোই যাবে , তাহলে আমি বলবো আপনার সাংবাদিকতা করার দরকার নাই।

ধরেন এখন শীতকাল আপনার উচিৎ শীতকালের সংবাদ প্রকাশ করা, আপনি মনে মনে ভাবলেন এরকম সংবাদ দিলে আমার টাকা ইনকাম হবেনা। তাহলে আপনি একজন হলুদ সাংবাদিক। যেখানে প্রচন্ড শীতে মানুষ জীবন-যাপন করতে পারছেন না, কোনো অসহায় মানুষ একটা শীতের কাপর কিনতে পারছে না, গ্রামের অসহায় বৃদ্ধের দেখার কেউ নেই, শীতের কাপর নেই, শীতে রাস্তার পাশে অসহায় ছোট মেয়েটিকে দেখার কেউ নেই, , এরকম শীতের শত শত সংবাদ পরে  থাকে কিন্তু কেউ প্রকাশ করতে চায়না।

আমি জানি এরকম চোখ দিয়ে দেখার মতো সংবাদ বেশি প্রকাশ না হলেও কি প্রকাশ হয়। শীতের মধ্যে অমুক কোম্পানি ১ হাজার গরীবদের মাঝে কম্বল বিতরণ করেছেন। অমুক নেতা নিজ উদ্বোগে ১০০ কম্বল বিতরন করলেন। এগুলো সংবাদের অভাব নেই। কারন আপনি এই কম্বল বিতরনের সংবাদ করলে আপনি হয়তো ২ থেকে ১ টা কম্বল পেতে পারেন, আর না হয় , কোম্পানি বা ব্যক্তির দান করা বস্তুর সংবাদ প্রকাশ হলে তাদের পরিচিত এবং সুনাম বৃদ্ধির জন্য আপনাকে তারা কিছু টাকা দিলো। এটা হলুদ সাংবাদিকতার পরিচয়।

আমি আপনাদের বলছি কিভাবে হলুদ সাংবাদিকতা থেকে আসল সাংবাদিকতায় আসবেন। আপনি আমার লেখায় পাবেন কিভাবে সাংবাদিকতায় সম্মান পাওয়া যায়। যাহোক আমি বলবো আপনি প্রথমে শীতে মানুষের ও জনজীবনের দুর্ভোগের কথা তুলে ধরেন। তখন আপনার সংবাদ যদি সবার নজর কারে, তখন দেখবেন ,এলাকার সেই কৃষক থেকে শুরু করে ইএনও প্রযন্ত জনজীবনের দুর্ভোগের কথা চিন্তা করে এগিয়ে আসবেন।

তখন কিন্তু তারা আপনাকে সংবাদ  দেওয়ার জন্য ও তাদের নাম প্রচার করার জন্য ডাকবে না। কারন তখন কোনো সংস্থা বা কোনো ব্যক্তি আপনার সংবাদ দেখে তাদের যতটুকু সম্ভব ততটুকু সহযোগিতা করবে। তখন আপনার নাম হবে, সাংবাদিকতায় সুনাম আসবে। সবাই আপনাকে চিনবে, তখন আপনাকে কেউ হলুদ সাংবাকিতা বলতে পারবেনা। আপনি নিজে কোন ধরনের সাংবাদিক সেটা নিজেই বুজতে পারবেন।

আমি শুধূ একটা ঊদাহরন দিয়ে লেখাটা প্রকাশ করলাম। আর লেখাটা কতটুকু মানসম্মত পাবে সেটা নির্ভর করবে দায়িত্বশীল পাঠকের উপর। বর্তমান যুগে আসল এবং হলুদ সাংবাদিকতা চেনা বড় দায় হয়ে উঠেছে। তবে বাংলাদেশ সরকারের গোয়েন্দা শাখা র‌্যাব বর্তমানে হলুদ সাংবাদিকতাদের ধরার জন্য চেষ্টা করছেন। এবং তারা সফলভাবে অনেক ভূয়া সাংবাদিকদের ধরে সাজা দিয়েছেন । কারন আজকে হলুদ সাংবাদিকতার আড়ালে আসল সাংবাদিকরাও হারিয়ে যাচ্ছে। আপনারা কখনো হলুদ সাংবাদিকদের প্রশ্রয় দিবেন না। ভূয়া সাংবাদিকদের ধরিয়ে দিতে হবে।

এরা দেশ ও সমাজের শত্রু। এরা কখনো দেশকে এগিয়ে নিতে পারবেনা। অনেকেই আছেন, পত্রিকায় কাজ করার নামে কিছু সাংবাদিক পত্রিকার নাম ভাঙ্গিয়ে ব্যবসা করেছে। তাতে শুধু পত্রিকার নাম নয় , এখানে আসল সাংবাদিকতাদের সুনামও অনেকেই  হারিয়ে ফেলছেন।

লেখক,
বাহাউদ্দীন তালুকদার
নির্বাহী সম্পাদক ও প্রকাশক
দৈনিক বাংলাদেশ সংবাদ।
সাবেক সহ সম্পাদক
দৈনিক আমাদের নতুন সময়।
সাবেক বার্তা সম্পাদক
দৈনিক সরেজমিন বার্তা।
সাবেক বার্তা সম্পাদক
জনতার বাণী।
স্টাফ রিপোর্টার
দৈনিক আমার প্রাণের বাংলাদেশ।

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © dainikbangladeshsangbad 2019
Design By MrHostBD